নতুন ভিসা ফি নির্ধারণ করা হয়েছে কোন দেশে কত খরচ সে সম্পকে জেনে নিন

0
184

সেই সাথে বেড়েছে নতুন ভিসার চার্জও। এক বছরের ভিসা ফি ১ লাখ ৩ হাজার ৮০০ টাকা ও দু’বছরের ১ লাখ ৬৬ হাজার ২৪০ টাকার সমমান। বাংলাদেশসহ সমগ্র বিশ্বের বিনিয়োগকারী ও ব্যবসায়ীরা এখন থেকে এ সুবিধা পাচ্ছেন। তবে ওমরাহ ও হজ্ব যাত্রীদের জন্য নতুন ভিসার ফি প্রযোজ্য হবে না। সৌদি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতি ও স্থানীয় হজ্ব এজেন্সী সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। লিমা ট্রাভেল এজেন্সীর স্বত্বাধিকারী ও খুলনা মানি চেঞ্জার এসোসিয়েশনের আহবায়ক কাজী আবুল কালাম সামসুদ্দীন নিশ্চিত করেন, সৌদির দু’বছরের মাল্টিপল এন্ট্রি ভিসার চার্জ প্রযোজ্য হবে না ওমরাহ ও হজ্ব যাত্রীদের জন্য।
তিনি বলেন, হজ্ব এজেন্সী মালিকগণ বাদে ব্যবসায়ীরা সাধারণত সৌদি আসা-যাওয়া করে না। তবে বাংলাদেশে তৈরি নামাজের টুপির ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। অবশ্য সবজি ও ফল রফতানি হয় সেখানে। যদিও এর সংখ্যা খুবই নগণ্য। ইউনিয়ন ট্যুরিজম সার্ভিসেস ও সিরাজাম মুনিরা ওভারসিজের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এস এম আজিজুর রহমান বলেন, সৌদি আরবের দু’বছরের মাল্টিপল ভিসা সুবিধা ভোগ করতে পারবেন বাংলাদেশের হজ্ব এজেন্সী মালিকগণ। হজ্ব যাত্রীদের নিয়ে যাওয়ার আগে সৌদি আরবে বাড়ি ভাড়া করাসহ বেশ কিছু কাজ সম্পন্ন করে থাকে এজেন্সীগুলো। অনেক সময় তিন মাসের বেশি ভিসার মেয়াদ দেয়া হয় না বিধায় ভোগান্তি পোহাতে হয় এজেন্সী মালিকগণের। দু’বছরের মাল্টিপল সুবিধার ফলে ব্যবসায়ীরা এখন থেকে সুবিধানুযায়ী সৌদি যাতায়াত করতে পারবেন।
সিটি গার্লস কলেজের প্রভাষক আজিজুল হক বলেন, সম্প্রতি সৌদি সরকার ভিশন ২০৩০ হাতে নিয়েছে এবং বৃহৎ পরিসরে এলাকা নির্ধারণ করে কৃষি অঞ্চল ঘোষণা করেছে। মূলতঃ তেলনির্ভর অর্থনীতির বিকল্প হিসেবে দেশটি কৃষিতে টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে। এজন্য সৌদি বিভিন্ন দেশ থেকে জনবল নিবে। আর জনবল সংগ্রহে সৌদি আরবে পছন্দের তালিকায় বাংলাদেশ শীর্ষে। এতে বাংলাদেশী কৃষকরা সৌদিতে কৃষি পণ্য উৎপাদনে বিনিয়োগ করে পর্যাপ্ত বৈদাশিক মুদ্রা অর্জন করতে পারবে। দু’বছরের মাল্টিপল ভিসা ফি সুবিধা পাবে ব্যবসায়ী ও কৃষকদের সৌদিতে বিনিয়োগে উদ্বুদ্ধ করবে বলে তিনি মনে করেন। ইতোমধ্যে সৌদিতে কর্মরত বাংলাদেশীরা কৃষি খাতে বিনিয়োগ করে সাফল্য পেয়েছে বলে তিনি আরও জানান।
সৌদির সর্বোচ্চ কাউন্সিলে গত বৃহস্পতিবার এক বছরের নতুন ভিসা ফি ৫ হাজার ও দু’বছরের ৮ হাজার রিয়েল নির্ধারণ হয়। যা ১ লাখ ৩ হাজার ৯শ’ টাকা ও ১ লাখ ৬৬ হাজার ২৪০ টাকার সমমান। এতে সেখানকার বিজ্ঞরা বলছেন, বাড়তি ফি সৌদি আরবের তেল-নির্ভর অর্থনীতিতে রূপান্তরে প্রয়োজনীয় বৈদেশিক বিনিয়োগকে বাধাগ্রস্ত করার ঝুঁকিতে ফেলতে পারে। এ উদ্বেগের জবাবে সেদেশের বাণিজ্যমন্ত্রীর মুখপাত্র বিবৃতিতে দেন। তাতে বলা হয়, ভিসার নতুন ফি বিদেশী বিনিয়োগ আনার ক্ষেত্রে প্রভাব ফেলবে না। আরও বলা হয়, বিনিয়োগকারী ও ব্যবসায়ীরা এখন থেকে সর্বোচ্চ দুই বছরের জন্য মাল্টিপল এন্ট্রি ভিসা পাবেন। এতে তারা প্রয়োজনমতো বারবার সৌদি আরবে আসা-যাওয়া করতে পারবেন। তবে একবার সৌদি আরবে প্রবেশের জন্য দু’হাজার রিয়াল দিতে হবে বলে জানা গেছে। উল্লেখ্য, এর আগে দেশটিতে মাল্টিপল ভিসার মেয়াদ ছিল এক বছর।

Content Protection by DMCA.com